যারা বাংলাদেশ ব্যাংক এর অফিসারের রিটেন দিয়েছেন কিন্তু নিজের সাধ্যের পুরোটা দিতে পারেন নি, তাদের জন্য এই পোস্ট। আশা করি, আপনি সামনে এডির জন্য ভাল কিছু গাইড লাইন পাবেন।

প্রথমেই বলি, আপনি যদি গতবারের অফিসার এবং এডির রিটেন পার্ট দেখে থাকেন, আপনি বুঝতে পারবেন, প্রশ্নটা ছিল কিছুটা ফাঁদের মত। লিখবেন, নাকি ম্যাথ করবেন। আর এই খানেই যারা ব্যালেন্স করতে পারেন, তারাই ভাল করবেন এবং করেছেন। কিন্তু এই ব্যালেন্স টা করবেন কিভাবে। আজকে এই নিয়েই কথা বলব।

যদি এবারের অফিসারের প্রশ্ন টা হাতে নিই, দেখা যায়,

৩ টা ম্যাথ খুব দ্রুত করার মত ছিল এবং সুদের ম্যাথ টা সহজ হলেও ক্যালকুলেশন এর প্রসেস ছিল দীর্ঘ। আর ত্রিকোনোমিতির ম্যাথ টা অনেকেই প্রথমে বুঝতে পারেন নি। তাহলে বলা যায় ৩ টা ম্যাথের জন্য ১৮/২০ মিনিট সময় নিয়ে আপনি চাইলে ১০ মিনিট সময় হাতে নিয়ে সুদের ম্যাথ টা করতে পারেন যদি মনে হয় ত্রিকোনোমিতির ম্যাথ টা আপনি পারবেন না। তাহলে বলা যায় আরো ১.৫ ঘন্টা সময় পাবেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়োগ পরীক্ষায় আর যাই কিছু হোক, রিটেন এর অংশে ভাল না লিখে মার্ক পাওয়া যাবে না। তাই আপনি অনেক লিখবেন ভেবেও কাজ হবে না যদি লেখার মধ্যে ভাল কিছু না থাকে। তাই আগেই মেপে নেয়া ভাল যে আপনি কতখানি লিখবেন। লেখার মধ্যে কেবল পৃষ্ঠা ভরার চেষ্টা দেখলেই মার্ক কম পাবেন। ডাটা ভিত্তিক এবং স্ট্যান্ডার্ড বাক্য লিখার চেষ্টা আপনাকে রিটেন এ অংশে ৮০% পর্যন্ত এনে দিতে পারে। হয়ত পাশের জন্য ৪ পৃষ্ঠা লিখছে দেখে ভাবলেন, আপনার হবে না, কিন্তু যিনি খাতা দেখেন, তিনি কিন্তু বাক্যের কোয়ালিটি এবং ডাটা দেখেই মার্ক দেবেন।

তাই পৃষ্ঠা বৃদ্ধির দিকের নজর না দিয়ে লেখার মানের দিকে নজর দেবেন। আর এইটাই মূল কারন যার জন্য অনেকেই ৩ ম্যাথেও চান্স পেয়ে যাবে কিন্তু অনেকেই ৪/৫ টা ম্যাথ সমাধান করেও পার পাবেন না। তাই আজকে থেকেই নিজের প্রতি কমিটমেন্ট আনুন, যে যাই লিখেন না কেন, তার একটা কোয়ালিটি থাকা চাই।

তাই নিচের কথা গুলো মেনে চলেন। কাজে লাগবে।

১। বিজনেস লেটার গুলোর কেবল ফরমেট ভাল রেখে ভাল শব্দ ব্যবহার করে লিখবেন।

২। ম্যাথের জন্য এত ওয়েব সাইট ওয়েব সাইট এবং কোন বাংলা বই ফলো না করে আগারওয়াল এর সাথে বিগত বছরের প্রশ্ন সলভ করুন। আর লাগবে না। কিন্তু যেই ম্যাথ করেন না কেন, বুঝে করবেন। সমাধান দেখে ম্যাথ শিখবেন না।

৩। রাইটিং এ ভাল করার জন্য নিয়মিত রিডিং হ্যাবিট বাড়ান। পাশাপাশি নিজে নিজে যে কোন টপিকের উপর লিখে কাউকে দিয়ে চেক করিয়ে নিন। principles of fearless writing level 1 , 2 and 3 দেখতে পারেন। বাক্য লিখাতে বৈচিত্র্য আনতে পড়ার পাশাপাশি লেখার অভ্যাস করতে হবে।

তবে কিছু কথা ভুলে গেলে হবে না।

১। বাংলায় ম্যাথ করবেন না। একেবারে না বুঝে থাকলেও না। অন্য কারো সাহায্য নিন।

২। নিয়মিত পত্রিকা পড়বেন ডাটা কালেকশন করার জন্য। কারেন্ট এফেয়ার্স প্রতিমাসে নিয়মিত পড়ুন।

৩। কোচিং চাইলে করতে পারেন, যদি কাছাকাছি হয় বা খুব দরকার হয়, অন্যাথায় না।

৪। পারলে সপ্তাহে ১ টা মডেল টেস্ট দিন বন্ধুরা একসাথে বসে। এতে করে একটা কনফিডেন্স আসবে।তবে ফাইনালেই পরীক্ষার আগে অবশ্যই মক দিবেন।

শুভকামনায়

হাসানুল পান্না শাকিল

উপপরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক