প্রিপারেশনের শুরুটা হচ্ছে মেন্টাল সেট-আপ থেকে। যেমন প্রিপারেশনের সময় বারবার নিজেকে যে এটাই শেষ সূযোগ। যদিও আরো কয়েকটা সার্কুলার পাবার মত বয়স ছিল। এরকমই নিজেকে বুঝিয়ে বুঝিয়ে ভাইবা পর্যন্ত যাওয়া।

 একজন প্রাইভেট ব্যাংকার হিসেবে চাকরির পাশাপাশি জব প্রিপারেশন নেয়াটা একটু কঠিন। রাতের কিছু বাড়তি সময় জেগে প্রিপারেশন নিতে হয়েছে। ম্যাথের ব্যাপারে লক্ষ্য ছিল প্রতি সপ্তাহে নতুন ধরণের কিছু ম্যাথ করা। আলাদা করে বইয়ের নাম বলবো না তবে যে বইটাই ফলো করবেন পুরোটা ভালোভাবে শেষ করতে হবে। কয়েকবার রিভিশন দিতে হবে।

 নিজের স্ট্রেন্থ আর উইকনেস খুজে বের করে স্ট্রেন্থ এর চর্চাটা চালিয়ে যেতে হবে আর উইকনেস নিয়ে কাজ করতে হবে। যেমন ম্যাথ এ ভালো হলে রেগুলার ম্যাথ প্রবলেমস গুলো সলভড করতে হবে। এটা হতে পারে বিগত বছরের প্রশ্ন বা ফেসবুক গ্রুপ এর প্রবলেমস গুলো। আর ইংলিশ এ ভালো হলে নিউজপেপার এর এডিটরিয়াল প্রতিদিন পড়তে হবে।

 উইকনেস এর জন্যে প্রব্লেম বুক রাখতে হবে। বিশেষ করে যে ম্যাথ গুলোয় প্রবলেম তার জন্য আলাদা একটি খাতা এবং একই ধরণের প্রবলেমগুলোর প্রাক্টিস করতে হবে। বিভিন্ন সোর্স থেকে সল্যুশন নিয়ে ব্যাসিক ক্লিয়ার করতে হবে।

 যেকোন ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা পড়ার চেষ্টা করবেন। আমি ফাইন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসটা বেছে নিয়েছি আর অনলাইনে ঢাকা ট্রিবিউন এর ইকোনোমিক পার্ট। সেখান থেকে সাম্প্রতিক টার্মগুলো জানা থাকলে রিটেন এ কাজে লাগবে।

 প্রতিদিনের কাজের লিস্টের ডেডলাইন সেট করে কাজ করতে হবে। আমি যেটা করেছিলাম তা হচ্ছে “Work Priority Matrix” অনুসারে কাজ গুছাতাম। মডেলটি গুগলে পাওয়া যাবে। কম গুরুত্বপূর্ণ কাজ ভূলে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে যে কোনো কিছুই ম্যানেজ এর বাইরে না। তাই পেন্ডিং রাখলে প্রবলেম নাই, পড়ালেখা বাদে।

পরিশ্রমের বিকল্প নেই। কিন্তু কিছু কৌশল দিতে পারে বাড়তি এডভান্টেজ। যেমন ম্যাথ করার সময় “আর্মি ব্রিদিং” বা হেডফোনে “স্টাডি মিউজিক” প্লে করে পড়া। আবার হতে পারে সেটা পড়াশোনাতে কন্সেন্ট্রেশন এর জন্য টেবিল ল্যাম্প দিয়ে পড়া। আরেকটা বিষয় হচ্ছে সঠিক গাইডলাইন। আমি চাচ্ছিলাম এরকম কাউকে গাইড হিসেবে, যিনি একই পথ দিয়ে হেটে গেছেন। এক্ষেত্রে অনন্য প্রতিষ্ঠান হলো  #Eclectic_Education  । সেখানেই পরিচয় হল বাংলাদেশ ব্যাংক এর ডেপুটি ডিরেক্টর শাকিল চৌধুরী স্যার এর সাথে। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্তে স্যারের দেয়া গাইডলাইন ও লেকচার ছিল অসাধারণ।

সবার জন্য শুভকামনা।

লেনিন আজাদ
সহকারী পরিচালক
বাংলাদেশ ব্যাংক